সুরা ইয়াসিনের ফজিলত সমূহ।

আপনারা হয়ত অনেকেই জানেন সুরা ইয়াসিনের ফজিলত সম্পর্কে তার পর বিস্তারিত বলার চেষ্টা করব।

এই সুরা নিয়মিত পরলে কি কি উপকার পাবেন।

১। নবী করিম (সাঃ) বলেছেন, সুরা ইয়াসিন আল কোরানের হৃদয়।

২। যে বেক্তি এই সুরা আল্লাহকে খুশি করার জন্য এবং পরকালের কল্যাণ লাভের জন্য পাঠ করবে। তাহার জন্য মাগফিরাত হয়ে যাবে।

৩।সুরা ইয়াসিন একবার পাঠ করলে দশবার কোরান খতম দেওয়ার সওয়াব পাওয়া যায়। আর তিলয়াতকারির সব গুনাহ মাফ হয়ে যায়।

৪। রাতে সুরা ইয়াসিন পাঠ করিলে নিস্পাপ হয়ে ঘুম থেকে উথা যায় সাথে আগের সব গুনাহ মাফ হয়ে যায়।

৫। যে বেক্তি এই সুরা বেশি বেশি পাঠ করিবে, কেয়ামতের দিন এই সুরা তার জন্য আল্লাহ্‌র কাছে সুপারিশ করবে।

৬। রাসুল (সাঃ) আরও বলেছেন, যে বেক্তি এই সুরা নিয়মিত পাঠ করিবে , তাহার জন্য জান্নাতের ৮ টি দরজায় খুলা থাকবে। তিরমিজি শরিফে বর্ণনা করা হয়েছে।

৭। হজরত আবু যর (রাঃ) বলেছেন, নবী করিম (সাঃ)

বলেছেন, মিত বেক্তির নিকট বসে এই সুরা পাঠ করিলে

মরণের যন্ত্রণা অনেক সহজ হয়ে যাবে। (মাজহারি)

৮। আব্দলাহ ইবনে জুবায়ের (রাঃ) হতে বর্ণিত, রাসুল (সাঃ) বলেছেন, কোন বেক্তি যদি অভাব অনটনের সময় পাঠ করে তাহলে তার অভাব দুর হয়ে যাবে। আর সংসারে শান্তি বিরাজ করবে। আল্লাহ্‌র রহমত নাযিল হবে।

(মাজ হারি)

৯। ইয়াহিয়া ইবনে কাশীর হতে বর্ণিত, রাসুল (সাঃ) বলেছেন, যে বেক্তি সকালে সুরা ইয়াসিন পাঠ করিবে সে সংধা পর্যন্ত সুখে শান্তিতে থাকিবে। আর যদি সংধা বেলায় পাঠ করিবে সে আগামীকাল পর্যন্ত শান্তিতে থাকিবে।

(মাজ হারি)

আরও বিস্তারিত লিখব আগামী পোস্টে।

আল্লাহুমা আমীন।